ঢাকা শনিবার, ২৮শে জানুয়ারী ২০২৩, ১৬ই মাঘ ১৪২৯


ছাত্রলীগের সম্মেলন: বৃহত্তর ফরিদপুর থেকে আলোচনায় যারা


৩০ নভেম্বর ২০২২ ১৩:৪২

আপডেট:
৩০ নভেম্বর ২০২২ ১৪:০৭

বৃহত্তর ফরিদপুর থেকে আলোচনায় যারা

বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ৩০তম জাতীয় সম্মেলন নিয়ে চলছে নানা জল্পনা-কল্পনা। ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক দলের ভ্রাতৃপ্রতীম সংগঠন হওয়ায় ছাত্রলীগের দায়িত্বপ্রাপ্ত সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের হাতে থাকবে ছাত্র রাজনীতির পতাকা।

এছাড়াও দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) নির্বাচনের সমূহ সম্ভাবনা, বিএনপির মাঠ দখলের চেষ্টা, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীক ছাত্র-রাজনীতি সক্রিয়সহ নানা কারণে হিসাব কষছে ছাত্রলীগের এ কমিটির জন্য।

আওয়ামী লীগের হাইকমান্ড বলছে, এবারের নির্বাচন বিগত দুই নির্বাচনের তুলনায় সহজ হবে না। তাই এবারের নির্বাচনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা থাকবে ছাত্রলীগের। এছাড়াও দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর ডাকসু নির্বাচন দেওয়া এবং আগামী প্রজন্মের জন্য যোগ্য নেতৃত্ব তৈরি করার পরিকল্পনা রয়েছে বর্তমান সরকারের। সরকারের এ পরিকল্পনা বাস্তবায়নের জন্য ছাত্রলীগকে সবচেয়ে বেশি কাজ করতে হবে। যার কারণে এবারের ছাত্রলীগে জনপ্রিয় ও বিতর্কের ঊর্ধ্বে থাকা নেতৃত্বের দায়িত্ব দেওয়ার পরিকল্পনা রয়েছে। এছাড়া দলীয় প্রধান শেখ হাসিনা নিজে যাচাই-বাচাইয়ের মাধ্যমে এবারের কমিটি দিবেন বলে জানায় দলীয় একটি সূত্র।

ছাত্রলীগের নেতৃত্ব নির্বাচনের ক্ষেত্রে সারাদেশকে সাতটি অঞ্চল হিসাব করা হয়। অঞ্চলগুলো হচ্ছে ফরিদপুর, চট্টগ্রাম, উত্তরবঙ্গ, ময়মনসিংহ, সিলেট, খুলনা ও বরিশাল।এর মধ্যে ছাত্রলীগের নেতৃত্ব নির্বাচনের ক্ষেত্রে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দেওয়া হয় রাজনীতির উর্বরভূমি খ্যাত বৃহত্তর ফরিদপুর।

ফরিদপুর

বৃহত্তর ফরিদপুর অঞ্চল থেকে অঞ্চল থেকে এবার আলোচনায় আছে, সহ-সভাপতি কামাল খান, কর্মসংস্থানবিষয়ক সম্পাদক রনি মাহমুদ, সমাজসেবা সম্পাদক হয়েছেন শেখ স্বাধীন শাহেদ, আইন সম্পাদক ফুয়াদ হোসেন শাহাদাত, উপ-ক্রীড়া সম্পাদক শরীফ বায়েজিদ ইবনে মোহাম্মদ কোতওয়াল, উপ-আইন সম্পাদক শাহেদ খান, রাকিব হোসেন, হাজী মহাম্মদ মহসীন হলের সভাপতি শহীদুল হক শিশির, জিয়া হল ছাত্রলীগের সভাপতি হাসিবুল হোসেন শান্ত, উপ-প্রশিক্ষণবিষয়ক সম্পাদক মেশকাত হোসেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক ইয়াসির আরাফাত তূর্য।

ঢাবির বাইরে থেকে আলোচনায় আছেন, কেন্দ্রীয় কমিটির উপ মানব সম্পদ বিষয়ক সম্পাদক শেখ মেহেদী হাসান( জবি)

সম্মেলনগুলোর ইতিহাস থেকে জানা যায়, ছাত্রলীগের বিগত দুইটি কমিটিতে প্রত্যেকবারই বৃহত্তর ফরিদপুর অঞ্চল থেকে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের শীর্ষ নেতৃত্ব এসেছে। ২০১৫-২০১৮ পর্যন্ত মো. সাইফুর রহমান সোহাগ ছাত্রলীগের সভাপতি এবং এস.এম জাকির হোসাইন সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেছন। এরমধ্যে সোহাগ এই অঞ্চলের ছিলেন। ২০১৮-২০১৯ কমিটিতে রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ছাত্রলীগের সভাপতি এবং মো. গোলাম রাব্বানী ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক হয়েছেন। এরমধ্যে গোলাম রাব্বানী এই অঞ্চলের ছিলেন। যদিও এই কমিটির মেয়াদ শেষ হওয়ার আগে তাদের অব্যাহতি দেওয়া হয়।
ফলে, অনেকের দাবি, বিগত কমিটিগুলোর ন্যায় এবারো কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের শীর্ষ নেতৃত্ব অথবা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের শীর্ষ নেতৃত্বের এক জায়গায় ফরিদপুর থেকে নেতা আসার সম্ভাবনা খুব বেশি। ফলে এবারের সম্মেলনে প্রার্থী নির্বাচনে বরাবরের ন্যায় এ অঞ্চলটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।