ঢাকা বুধবার, ৫ই অক্টোবর ২০২২, ২১শে আশ্বিন ১৪২৯


সিইসি হিসেবে সাবেক দুই আমলার নাম প্রস্তাব


২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২২ ১০:০৭

আপডেট:
৫ অক্টোবর ২০২২ ১৫:২৫

বারবার কাটাছেঁড়ার পর প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) ও চার নির্বাচন কমিশনার পদের জন্য অবশেষে সার্চ কমিটি ১০ জনের চূড়ান্ত তালিকা করেছে। এই তালিকা নিয়ে কাল বৃহস্পতিবার রাষ্ট্রপতি মো. আব্দুল হামিদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন বিচারপতি ওবায়দুল হাসানের নেতৃত্বাধীন সার্চ কমিটি।

সূত্র জানায়, তালিকায় সিইসি হিসেবে সাবেক দুই আমলার নাম রয়েছে। এ ছাড়া চারজন নির্বাচন কমিশনারের বিপরীতে করা ৮ জনের তালিকায় আছেন দুজন শিক্ষক, দুজন নারী, সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের একজন, সাবেক একজন জেলা ও দায়রা জজ এবং সাবেক সেনা ও পুলিশ কর্মকর্তার নাম। গতকাল মঙ্গলবার বিকালে সুপ্রিমকোর্টের জাজেস লাউঞ্জে সার্চ কমিটির প্রায় চার ঘণ্টার বৈঠকে ১০ জনের নামের চূড়ান্ত করা হয়।

আইন অনুসারে, এই তালিকা থেকে ৫ জনকে বেছে নিয়ে রাষ্ট্রপতি গঠন করবেন নির্বাচন কমিশন (ইসি)। নতুন ইসির কাঁধে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠানের দায়িত্ব।

গতকালের বৈঠক শেষে সার্চ কমিটিকে সাচিবিক সহায়তার দায়িত্বে থাকা মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, আজ (গতকাল) সার্চ কমিটি তাদের বৈঠক শেষ করে ১০ জনের নাম চূড়ান্ত করেছে। পরশু (বৃহস্পতিবার) তারা রাষ্ট্রপতির কাছে তালিকা জমা দেবেন। উনাদের মিটিং শেষ, সিলেকশনও শেষ- সবকিছু ফাইনাল করে ফেলেছেন। রাষ্ট্রপতির কাছে ১০ জনের নাম জমা দেওয়ার পর তিনি যেভাবে সিদ্ধান্ত নেবেন, সেভাবে হবে।

এদিকে নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা গেছে, সিইসি পদে সরকারি কর্মকমিশনের (পিএসসি) সাবেক চেয়ারম্যান ও সাবেক নির্বাচন কমিশন সচিব ড. মোহাম্মদ সাদিক এবং সাবেক মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ মোশাররাফ হোসাইন ভূইঞার নাম রয়েছে। চূড়ান্ত তালিকায় সাবেক প্রতিরক্ষা সচিব কাজী হাবিবুল আউয়ালের নামও আছে।

সার্চ কমিটির এক সদস্য  বলেন, সমাজের কার্যকরী বিভিন্ন পেশার সমন্বয়ে ইসি গঠনের লক্ষ্যে ১০ জনের নাম সুপারিশ করা হয়েছে। এর মধ্যে সাবেক আমলা, নারী প্রতিনিধি, শিক্ষকও আছেন। আগামী সপ্তাহের শুরুতে নিয়োগ পাওয়া সিইসি ও নির্বাচন কমিশনাররা শপথ নিতে পারেন।

এর আগে পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী গতকাল প্রস্তাবিত নামের সংক্ষিপ্ত তালিকা থেকে ১০ জনের নাম চূড়ান্ত করতে বিকাল সাড়ে ৪টায় বৈঠকে বসেন সার্চ কমিটির সদস্যরা। কমিটির প্রধান বিচারপতি ওবায়দুল হাসানের সভাপতিত্বে বৈঠকে বাকি পাঁচ সদস্য বিচারপতি এসএম কুদ্দুস জামান, মহাহিসাব নিয়ন্ত্রক ও নিরীক্ষক (সিএজি) মুসলিম চৌধুরী, পিএসসি চেয়ারম্যান সোহরাব হোসাইন, সাবেক নির্বাচন কমিশনার মুহাম্মদ ছহুল হোসাইন ও লেখক অধ্যাপক আনোয়ারা সৈয়দ হক অংশ নেন। বৈঠকে ১০ জনের নাম চূড়ান্ত করে তালিকা সিলগালা করা হয়। তবে বৈঠক শেষে কমিটির সদস্যরা সাংবাদিকদের সঙ্গে কোনো কথা বলেননি।

জানা গেছে, যেসব রাজনৈতিক দল সিইসি ও নির্বাচন কমিশনার হিসেবে নামের তালিকা জমা দিয়েছে তাদের সার্চ কমিটির পক্ষ থেকে ‘থ্যাংকস লেটার’ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এবারই প্রথম আইন অনুযায়ী ইসি গঠিত হচ্ছে। গত ২৭ জানুয়ারি জাতীয় সংসদে আইন পাসের পর ইসি গঠনে যোগ্য ব্যক্তি বাছাইয়ে ৫ ফেব্রুয়ারি আপিল বিভাগের বিচারপতি ওবায়দুল হাসানের নেতৃত্বে ৬ সদস্যের সার্চ কমিটি গঠন করা হয়। কমিটি দুটি বৈঠক করে নিবন্ধিত রাজনৈতিক দল ও ব্যক্তিপর্যায়ে সিইসি ও নির্বাচন কমিশনারের নামের প্রস্তাব আহ্বান করে। এরই মধ্যে চার দফায় নাগরিক সমাজের প্রতিনিধি, সাংবাদিক ও বিভিন্ন পেশাজীবী সংগঠনের নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করে কমিটি।

এর পর নিবন্ধিত দুই ডজন রাজনৈতিক দলের পাশাপাশি ছয় পেশাজীবী সংগঠন ও ব্যক্তিগত পর্যায় থেকে পাওয়া ৩২২ জনের নাম পাওয়া যায়। বিএনপিসহ ১৫টি রাজনৈতিক দল নাম দেয়নি। ১৪ ফেব্রুয়ারি ৩২২ জনের নামের তালিকা প্রকাশ করা হয়। এর পরও বিশিষ্টজনদের সঙ্গে বৈঠকে আরও কিছু নামের প্রস্তাব আসে। সেই তালিকা নিয়ে বৈঠকে বসে কমিটি। প্রথমে ৪০ জনের সংক্ষিপ্ত তালিকা করা হয়।

গত শনিবারের বৈঠকে সেই তালিকা ২০ জনে নেমে আসে। পরদিন বিকালে আবার বসে কমিটি। সেদিনের বৈঠকে তালিকা ১২-১৩ জনে নামিয়ে আনা হয়। গতকালে বৈঠকে ১০ জনের নামের তালিকা চূড়ান্ত করা হয়েছে। তালিকা চূড়ান্ত করতে শুধু সার্চ কমিটির সদস্যরা ৮টি বৈঠক করেছেন। গত ১৪ ফেব্রুয়ারি কেএম নূরুল হুদা নেতৃত্বাধীন কমিশনের মেয়াদ শেষ হয়।