ঢাকা রবিবার, ৩রা মার্চ ২০২৪, ২১শে ফাল্গুন ১৪৩০


'বঙ্গবন্ধুর সুনিশ্চিত করা সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি অক্ষুণ্ণ রাখতে সচেষ্ট থাকতে হবে'


২ মার্চ ২০২৩ ২২:৫৩

আপডেট:
৩ মার্চ ২০২৪ ০৯:২৩

'বঙ্গবন্ধুর সুনিশ্চিত করা সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি অক্ষুণ্ণ রাখতে সচেষ্ট থাকতে হবে'

ধর্ম প্রতিমন্ত্রী মো. ফরিদুল হক খান বলেছেন, ধর্মকে রাজনৈতিক হীন স্বার্থে ব্যবহার করে কেউ যেন দেশে সম্প্রীতির পরিবেশ নষ্ট করতে না পারে, সে বিষয়ে নাগরিক সমাজকে ঐক্যবদ্ধ ও সজাগ থাকতে হবে।

তিনি বলেন, ধর্মীয় সম্প্রীতি সুরক্ষায় সব সম্প্রদায়ের অনুসারীদের ঐক্যবদ্ধ ও সচেতন থাকতে হবে। যেকোনো ধর্মীয় উসকানির বিরুদ্ধে সব সম্প্রদায়ের অনুসারীদের ঐক্যবদ্ধ হয়ে প্রতিবাদ জানাতে হবে। তাহলে কোনো অপশক্তি দেশে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির পরিবেশ নষ্ট করতে পারবে না।

বুধবার (১ মার্চ ) বিকেলে আগারগাও ইসলামিক ফাউন্ডেশন মিলনায়তন সম্মেলন কক্ষে ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয় পরিচালিত ‘ধর্মীয় সম্প্রীতি ও সচেতনতা বৃদ্ধি করণ’ শীর্ষক প্রকল্পের এক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন প্রতিমন্ত্রী। আন্তঃধর্মীয় সম্প্রীতি ও সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের সহযোগিতায় ঢাকা জেলা প্রশাসন এ সেমিনারের আয়োজন করে।

ফরিদুল হক খান বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বর্তমান সরকার দেশের প্রতিটি সম্প্রদায়ের কল্যাণে উন্নয়ন কার্যক্রম বাস্তবায়ন করছে। দেশে মসজিদ, মন্দির, গির্জা প্যাগোডাসহ সব ধরনের ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান ভিত্তিক নৈতিক ও ধর্মীয় শিক্ষা পরিচালনা করছে। অসচ্ছল ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের উন্নয়নে সরকার উল্লেখযোগ্য পরিমাণ অনুদান সহায়তা প্রদান করে যাচ্ছে।

ঢাকা জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মমিনুর রহমানের সভাপতিত্বে সেমিনারে ঢাকা-২০ আসনরে সংসদ সদস্য ও ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বেনজির আহমেদ, ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব জনাব মুঃ আঃ আউয়াল হাওলাদার, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক ডক্টর মহাঃ বশিরুল আলম, ঢাকা জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আসাদুজ্জামান, ঢাকা জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ মাহবুবুর রহমান, ধর্মীয় সম্প্রীতি ও সচেতনতা বৃদ্ধিকরণ শীর্ষক প্রকল্পের পরিচালক আব্দুল্লাহ আল শাহীন, ঢাকা জেলার আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পনিরুজ্জামান তরুণ, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যানবৃন্দ, বীর মুক্তিযোদ্ধাগণ, বিভিন্ন ধর্মীয় ও রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, সুশীল সমাজের প্রতিনিধিগণ এবং প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এতে সভাপতির বক্তৃতায় জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মমিনুর রহমান বলেন, বাংলাদেশ একটি চমৎকার সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির দেশ। হাজার বছর ধরে এ ভূখন্ডে জাতি-ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সকল ধর্মের মানুষ মিলেমিশে একত্রে বসবাস করে আসছেন। তিনি বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আমাদের সংবিধানে সকল ধর্ম ও বর্ণের মানুষের সমান অধিকার সুনিশ্চিত করেছিলেন।’ তিনি সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি ও সামাজিক বন্ধনের এ ধারাবাহিকতা অক্ষুন্ন রাখতে সকলকে সচেষ্ট থাকার আহ্বান জানান।

উল্লেখ্য, ঢাকা জেলার জেলা ধর্মীয় সম্প্রীতি ও সচেতনতামূলক আন্তঃধর্মীয় সংলাপ অনুষ্ঠানে বিভিন্ন দফতরের কর্মকর্তা-কর্মচারী, রাজনৈতিক নেতা, সাংবাদিক, মসজিদের ইমাম, হিন্দু ধর্ম কল্যান ট্রাস্টের প্রতিনিধিগণ, বৌদ্ধ ধর্ম কল্যান ট্রাস্টের প্রতিনিধিগণ, খ্রীষ্ঠান ধর্ম কল্যান ট্রাস্টের প্রতিনিধিগণ, বীর মুক্তিযোদ্ধাগণ, নারী নেতৃবৃন্দ, বিভিন্ন স্কুল, মাদরাসা ও কলেজের শিক্ষকসহ সর্বস্তরের জনগণ অংশ নেন।