ঢাকা শনিবার, ২৮শে জানুয়ারী ২০২৩, ১৬ই মাঘ ১৪২৯


বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব ফায়ার একাডেমির জমি বুঝে পেলো ফায়ার সার্ভিস


১০ নভেম্বর ২০২১ ০০:৩৩

আপডেট:
২৮ জানুয়ারী ২০২৩ ০৯:৪৫

সাফল্যের পথ চলায় ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্স অধিদপ্তরের মুকুটে যোগ হলো আরেকটি নতুন পালক। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব ফায়ার একাডেমির জন্য মুন্সিগঞ্জের গজারিয়া উপজেলার বালুয়াকান্দি ইউনিয়নের রায়পাড়া মৌজায় অধিগ্রহণ করা ১০০ দশমিক ৯২ একর জায়গার দখল বুঝে পেয়েছে ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্স অধিদপ্তর।

মঙ্গলবার (৯ নভেম্বর) দুপুরে ফায়ার একাডেমির নিজস্ব জায়গায় অনুষ্ঠিত জমি হস্তান্তর ও গ্রহণের ওপর এক অনাড়ম্বর অনুষ্ঠানের মাধ্যমে জমির দখল দলিল বুঝে পায় ফায়ার সার্ভিস। সন্ধ্যায় ফায়ার সার্ভিস সদরদপ্তরের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (মিডিয়া সেল) মো. শাহজাহান শিকদার এ তথ্য জানান।

মুন্সিগঞ্জ জেলার জেলা প্রশাসকের পক্ষে জেলা ভূমি অধিগ্রহণ কর্মকর্তা কামরুল হাসান সোহেল এবং ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অধিদপ্তরের পক্ষে ঢাকার সহকারী পরিচালক আব্দুল হালিম জমির দখলনামা দলিলে স্বাক্ষর করেন। পরে মুন্সিগঞ্জের জেলা প্রশাসকের পক্ষে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রেভিনিউ) মো. নোমান হোসেন জমির দলিল ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অধিদপ্তরের মহাপরিচালকের কাছে হস্তান্তর করেন। জমি হস্তান্তর ও গ্রহণ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব ফায়ার একাডেমি প্রতিষ্ঠার প্রথম ধাপ জমি অধিগ্রহণ প্রক্রিয়ার সব কাজ সম্পন্ন হলো।

অনুষ্ঠানে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. সাজ্জাদ হোসাইন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব ফায়ার একাডেমি প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে জমি হস্তান্তর ও গ্রহণ সম্পন্ন হওয়ায় প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী ও সুরক্ষা সেবা বিভাগের সচিবসহ সরকারের কাছে আন্তরিক কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন। তিনি মুন্সিগঞ্জের জেলা প্রশাসকসহ জমি হস্তান্তর প্রক্রিয়ার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সব কর্মকর্তা-কর্মচারী ও গজারিয়ার বালুয়াকান্দি ইউনিয়নবাসীকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানান।

তিনি বলেন, অধিদপ্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের প্রশিক্ষণ মানকে আধুনিক, উন্নত ও বিশ্বমানের করার লক্ষ্যে ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব ফায়ার একাডেমি’ প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। একাডেমি প্রতিষ্ঠার কাজ সম্পন্ন হলে দেশি-বিদেশি প্রশিক্ষণার্থীদের প্রশিক্ষণ দিয়ে তাদের দক্ষ ও চৌকস ফায়ার ফাইটার হিসেবে গড়ে তোলা সম্ভব হবে। ফলে সব দুর্যোগে তারা সর্বোচ্চ সক্ষমতা নিয়ে সেবা দিতে সক্ষম হবেন।

অনুষ্ঠানে ফায়ার সার্ভিস অধিদপ্তরের মহাপরিচালক (ডিজি) ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. সাজ্জাদ হোসাইন, ফায়ার সার্ভিস অধিদপ্তরের পরিচালক (প্রশাসন ও অর্থ) মো. হাবিবুর রহমান, পরিচালক (প্রশিক্ষণ, পরিকল্পনা ও উন্নয়ন) লে. কর্নেল সিদ্দিক মো. জুলফিকার রহমান, পরিচালক (অপা. ও মেইন) লে. কর্নেল জিল্লুর রহমান, মুন্সিগঞ্জ জেলার জেলা প্রশাসকের পক্ষে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রেভিনিউ) মো. নোমান হোসেন, মুন্সিগঞ্জ জেলা ভূমি অধিগ্রহণ কর্মকর্তা কামরুল হাসান সোহেল, গজারিয়া উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) সৈয়দা ইয়াসমিন সুলতানা, ফায়ার সার্ভিস অধিদপ্তর ও ঢাকা বিভাগের উপ-পরিচালক, সহকারী পরিচালক, মুন্সিগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের উপ-সহকারী পরিচালক, সিনিয়র এসও খান খলিলুর রহমান, স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও সরকার দলীয় নেতা ও বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন।