ঢাকা বুধবার, ২৪শে জুলাই ২০২৪, ১০ই শ্রাবণ ১৪৩১


কালিগঞ্জে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনায় বৃদ্ধার সংবাদ সম্মেলন


৯ জুলাই ২০২৪ ১৬:৪২

আপডেট:
২৪ জুলাই ২০২৪ ২১:২৯

 

সাতক্ষীরার কালিগঞ্জে এক সংখ্যালঘু পরিবারের সম্পত্তি জবরদখল ও ষড়যন্ত্রের অভিযোগ উঠেছে। মঙ্গলবার দুপুরে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের আব্দুল মোতলেব মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলন লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন কালিগঞ্জের বন্দীপুর গ্রামের বৃদ্ধার নিরঞ্জন ঘোষ। লিখিত অভিযোগে তিনি বলেন, বিগত ৩০ বছর পূর্ব আমার পুত্র শংকর কুমার ঘোষ স্বধর্ম সনাতন ত্যাগ করে ইসলাম ধর্ম গ্রহন করে এবং নাম রাখে আব্দুর রহমান। সেই নামেই সে পরিচিত ও সকলেই চেনে জানে। ধর্মান্তরিত হয়ে আমার পরিবার হতে সম্পুর্ন বিচ্ছিন্ন হয়ে রুবিনা পারভীন নামের একটি মেয়েকে বিয়ে করে সেখানেই সংসার জীবন যাপন করছে। যেহেতু পরিবারের ইচ্ছার বিরুদ্ধে ধর্মান্তরিত সেকারণেই আমার উত্তরাধিকার হতেও আইনের বিধানমতে সে বঞ্চিত হবে এটাই স্বাভাবিক। এরপরেও শংকর ঘোষকে নব মুসলিম আখ্যা দিয়ে আমার ও আমার পরিবারের উপর জুলুম শুরু করেছে একটি চক্র। কালিগঞ্জ উপজেলার রতনপুর ইউনিয়নের বন্দীপুর গ্রামের আব্দুর রউফ গাজীর মেয়ে ও ধর্মান্তরিত আব্দুর রহমানের স্ত্রী রুবিনা পারভীর (৩৮), আড়ংগাছা গ্রামের শ্যামলীর সরদারের ছেলে সাইদুর রহমান (৫০), পীরগাজন গ্রামের নজির আহমেদ এর ছেলে মাসুম বিল্লাহ (৪৮), আবুল কাশেম গাজীর ছেলে আব্দুল মান্নান গাজী (৫৫), আব্দুর রউপ গাজীর ছেলে আসাদুর রহমান গাজী (৩৫), আব্দুল হামিদ গাজীর ছেলে আব্দুস সামাদ গাজী (৪০), ও আব্দুর রশিদ গাজীর ছেলে আব্দুস সেলিম গাজী (২৮) সহ তাদের দোসররা সম্পুর্ন পরিকল্পিত ভাবে আমার সম্পত্তি জবরদখল করার পায়তারা চালাচ্ছে এবং নানান রকম হুমকি ধমকী দিয়ে আসছে। ইতিমধ্যেই ভয়ভীতি প্রদর্শন করে আমার ৮ শতক জমির উপরে বাসগৃহ জোর করে দখল করেছে। আব্দুর রহমান (শংকর কুমার ঘোষ) বর্তমানে বিদেশে অবস্থান করায় অবৈধভাবে সম্পত্তি দখল করতে তার স্ত্রী রুবিনা পারভীন কে দিয়ে পরিকল্পিত ভাবে এসব করছে।
তিনি আরো বলেন তারা প্রায়ই আমাকে হুমকি দিয়ে বলছে একাকী পাইলে ধরে জিম্মি করে রেজিষ্ট্রি অফিসে নিয়ে আব্দুর রহমানের নামে জমি লিখে নেবে। আমার মৎস্য ঘের, ফসলি জমি ও বসতঘর জবরদখল করবে বলে চক্রান্ত চালাচ্ছে। এসকল হীন চক্রান্ত ও নানামুখী ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদ করায় আমাকে ও স্ত্রীকে গুম ও খুন করতে পারে এমন আশঙ্কা করছি। বর্তমানে আমি ও স্ত্রী আমার বাড়িতে অবস্থিত পুজা মন্দিরে পুজা অর্চনা করা, নিশ্চিন্তে নির্বিঘ্নে বাজারঘাট ও স্বাভাবিক ভাবে চলাফেরা করতে পারছি না। সাইদুর রহমান গংয়ের ছত্রছায়ায় ও ইন্ধনে রুবিনা পারভীন নানান ধরণের আস্ফালন করছে বলেই আমি শঙ্কিত। পিতা মাতার অবাধ্য হয়ে ধর্মান্তরিত হওয়া সন্তান আইনগতভাবে উত্তরাধিকার হয়না যেনেও তারা পরিকল্পিত ভাবে হীন ষড়যন্ত্র চালিয়ে আসছে। আমি কালিগঞ্জ থানাসহ বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ দায়ের করায় বিপাকে পড়েছি এবং আরও আতঙ্কিত অবস্থায় আছি। বর্তমানে ব্যাপক নিরাপত্তা হীনতায় দিনাতিপাত করছি।
তিনি স্বাভাবিক ভাবে জীবন যাপন করতে সাতক্ষীরার জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।


কালিগঞ্জে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনায় বৃদ্ধার সংবাদ সম্মেলন